একমাত্র ছেলের মৃত্যুশোকে আত্মঘাতী ইঞ্জিনিয়ার বাবা

ছেলের মৃত্যুর অবসাদে আত্মঘাতী বাবা। রবিবার সকালে নদিয়ার শান্তিপুরের ঘটনা। নিহতের নাম গৌরাঙ্গ বসাক (৪৮)। বছরখানেক আগে গৌরাঙ্গবাবুর একমাত্র ছেলের মৃত্যু হয়। তার পর থেকেই অবাসদে ভুগছিলেন তিনি।

শান্তিপুরের ফুলিয়ার বুইচা বসাকপাড়ার বাসিন্দা ছিলেন গৌরাঙ্গবাবু। রবিবার সকালে বাড়ির তাঁতঘর থেকে তাঁর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। পরিবারের সদস্যরা হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন। এর পর শক্তিনগর জেলা হাসপাতালে দেহের ময়নাতদন্ত হয়।

পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে, পেশায় সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার গৌরাঙ্গবাবু ১৮ বছর বেঙ্গালুরুতে কর্মরত ছিলেন। গত বছর তাঁর একমাত্র ছেলের মৃত্যু হয়। এর পর বেঙ্গালুরু থেকে ফিরে বাঁকুড়ায় শ্বশুরবাড়িতে থাকতে শুরু করেন। ওয়ার্ক ফ্রম হোম চাকরি করতেন তিনি। মাঝে মাঝে ফুলিয়ার বাড়িতে এসেও থাকতেন। গত ১ মাস ফুলিয়ার বাড়িতেই ছিলেন তিনি।

নিহতের ভাই জানিয়েছেন, ছেলের মৃত্যুর পর থেকে দাদা মনমরা হয়ে যায়। কারও সঙ্গে বেশি কথা বলত না। অবসাদে ভুগছিল ও। তবে দাদাকে এভাবে হারাবো ভাবতে পারিনি। ও খুব মেধাবী ছেলে ছিল। নামি ইঞ্জিনিয়ার ছিল ও। রানাঘাট জেলার পুলিশ সুপার জানিয়েছেন, এখনও কোনও সুইসাইড নোট পাওয়া যায়নি। মৃত্যুর কারণ খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

2023-03-19T13:23:03Z dg43tfdfdgfd